শিরোনামঃ

আজ বৃহস্পতিবার / ১৬ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ১লা ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ৬ই জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় সকাল ৭:৫৪

হাতে বাঁধছে লাল সুতো, ঈশ্বরদীতে অদৃশ্য সাপ আতঙ্কে গ্রামের মানুষ

সেলিম আহমেদ, ঈশ্বরদী থেকে :
‘অদৃশ্য সাপ’ আতঙ্কে আতঙ্কিত পাবনা ও নাটোর জেলার মানুষ। ছোবল দেয়ার পরে কেউ সাপ বা পোকা দেখতে পাচ্ছে না, তবে কিছুণ পরে শরীরে অনুভূতি হচ্ছে জ্বালা-পোড়া। খেয়াল করলে বোঝা যাচ্ছে ছোবলের দাগ ও রক্ত। কিছুণ পর শরির হয়ে যাচ্ছে কালো। প্রায় শতাধিকের বেশি মানুষ এ ছোবলের শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে।

সোমবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে এ খবর চাওর হলে গোটা ঈশ্বরদীতে সব বয়সি ছেলে মেয়ের মধ্যে সাপ আতঙ্ক বিরাজ করতে থাকে। এ সাপের ছোবল থেকে রা পেতে শিশু থেকে শুরু করে সকল বয়সিরা হাতে বাঁধছে লাল সুতো। কেউ কেউ কোরআন শরীফের বিভিন্ন আয়াত লিখে তাবিজ বানিয়ে ব্যবহার করছে।

মুলাডুলির দরগাপাড়া গ্রামের মেহেদি হাসান নিলয় বলেন, এলাকার সাধারণ মানুষ গুজব হিসেবে মনে করছিল। কিন্তু যখন পর্যায়ক্রমে এ গুজব চলে এলো গ্রামে গ্রামে, ঘরে ঘরে তখন আর কেউ এ ‘অদৃশ্য সাপ’কে অবিশ্বাস করতে পারছে না। শনিবার (৬ অক্টোবর) আমাদের দুই আত্মীয় অসুস্থ হয়ে পড়লে পরে ওঝার কাছে নিয়ে এসে বিষ তোলার পর এখন তারা সুস্থ।

দাশুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বকুল সরদার জানান, এ অদৃশ্য সাপের ছোবলের কথা প্রথমে শোনা যায়- নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নে। এর পরেই চলে আসে পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়নে। রোববার থেকে চলে এসেছে ঈশ্বরদী উপজেলার দাশুড়িয়া ইউনিয়নে।

ঈশ্বরদী হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার শফিকুল ইসলাম শামিম বলেন, এইটা ভিত্তিহীন একটি খবর। বা¯Íবে এরকম অদৃশ্য কোনো সাপ নেই। তাই ভয় পাওয়ার কিছুই নেই। এ ধরনের ঘটনা মাস হিস্টিরিয়া হতে পারে। মনে ভয় বা আতঙ্ক অতি দ্রƒত একজন থেকে আরেকজনে ছড়িয়ে পড়ছে। আমরা সরেজমিন গিয়ে দেখেছি, এ ঘটনায় কেউ মারা যায়নি।

তিনি আরও বলেন, বা¯Íবে খোঁজ নিয়ে দেখেন কাউকে সাপে কাটেনি/সাপে কাটার কোনো দাগও নাই। অনেক সময় দেখা যায় কোনো স্কুল বা কলেজে কোনো কারণ ছাড়াই এক সঙ্গে অনেক স্টুডেন্ট জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। আসলে কোনো রোগের কারণে তাদের এমন হয় না। ভয় বা আতঙ্ক দ্রƒত একজন স্টুডেন্ট থেকে আরেজনে ছড়িয়ে পড়ে, ফলে তাদের একই রকম শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন লণ দেখা যায়। এটাই মাস হিস্টিরিয়া।

গত কয়েক বছর আগে বর্ষার সময় এমন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল। পরবর্তীতে দেখা গেলো সাপ নয়। ঢোলকলমি ফুলের ভেতর এক ধরনের পোকা থাকে সেই পোকার কামড় এবং তা থেকে আতঙ্কের কারণে এমন হয়েছিল। তখন ঈশ্বরদীতে ঢোলকলমি গাছ কাটার ধুম পড়ে যায়। এটা আতঙ্ক ছাড়া আর কিছু নয়, বছরে কোন কোন সময় এমন গুজব প্রচার হয়ে থাকে। তাই কেউ এই গুজবে কান দিবেন না।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap