শিরোনামঃ

আজ শুক্রবার / ৭ই আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / বর্ষাকাল / ২১শে জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ / ১৫ই জিলহজ ১৪৪৫ হিজরি / এখন সময় বিকাল ৪:২১

মাইক সিনেমা দেখে শৈশবে ফিরে গেলেন মুক্তি যোদ্ধা আব্দুল কুদ্দুস এমপি

মোঃ মাসুদ রানা, গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোর জেলার এক মাত্র সিনেমা হল আনন্দ সিনেপেক্সে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে উপজীব্য করে নির্মিত প্রথম শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘মাইক’ সিনেমার প্রিমিয়াম শো’র উদ্বোধন হয়েছে।

শুক্রবার (১১ আগষ্ট) বিকাল ৪ টায় গুরুদাসপুর পৌর শহরে চাঁচকৈড় আনন্দ সিনেপ্লেক্সে ফিতাকেটে আনুষ্টানিক ভাবে উদ্বোধন করেন নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস এমপি।

ফিতা কেটে উদ্বোধনের পর আনন্দ সিনেপেক্সে বসে সিনেমাটি উপভোগ করেন নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ অধ্যাপক মোঃ আব্দুল কুদ্দুস। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবনী রায়, গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. মনোয়ারুজ্জামান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলাল শেখ, জেলা আ.লীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক এমপি পুত্র আসিফ আব্দুল্লাহ বিন কুদ্দুস শোভন,উপজেলা আ.লীগের সহ সভাপতি প্রভাষক মোজাম্মেল হক, আনন্দ সিনেপ্লেক্সের সত্বাধিকারী সাংবাদিক আনিসুর রহমান, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মিল্টন উদ্দিন,পৌর আ.লীগের যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল করিম,ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সুভাষিস কবির,আলমগীর শেখ এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিশু শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণী পেশার অসংখ্য সিনেমা প্রেমী দর্শক।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচিত্রটি দেখে নাটোর-৪ আসনের সংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস বলেন, “আমাদের স্বাধীনতাযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু ও তার ৭ মার্চের ভাষণকে জানা ছাড়াও ‘মাইক’ সিনেমাতে অনেক ভালো গল্প আছে, জাতীর জনকের ঐতিহাসিক ভাষনে অনুপ্রানীত হয়ে বাঙালী জাতি স্বাধীনতার যুদ্ধে ঝাপিয়ে পরে ছিনিয়ে আনে লাল সবুজ পতাকা। ঐতিহাসিক ভাষন নির্ভর এ ছবিটি দেখে আমাদের নতুন প্রজন্মের শিশু কিশোররা মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে। সিনেমাটি অসাধারণ,এমন সিনেমা আরও হওয়া প্রয়োজন।

গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবনী রায় বলেন, শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘মাইক’-এর মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণসহ স্বাধীনতার ইতিহাস জানতে পারবে। একই সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে ‘মাইক’ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তিনি সবার প্রতি ভালো ছবি দেখার আহবান জানান।

চাঁচকৈড় নাজিম উদ্দিন স্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ(ভারপ্রাপ্ত) জালাল উদ্দিন শুক্তি সিনেমা শেষে অনুভুতি ব্যক্ত করে বলেন, মাইক চলচ্চিত্র দেখে আমি অভিভূত। চলচ্চিত্রটিতে বঙ্গবন্ধুর হত্যার পরবর্তি সময়ের ভয়াবহ পরিস্থিতি উঠে এসেছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা বঙ্গবন্ধুর ভাষণকে নিষিদ্ধ করতে চেয়েছিল। কিন্তু তা পারেনি। আমি আশা করি, চলচ্চিত্রটি তরুণ প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধুকে পৌঁছে দেবে।

আনন্দ সিনেপ্লেক্সের ব্যবস্থাপক আনিসুর রহমান প্রেক্ষাগৃহে এসে সিনেমাটি দেখার আহব্বান জানিয়ে বলেন,শোকের মাস আগষ্টে ছবিটি মুক্তি দিয়ে জাতীর জনকের প্রতি সম্মান দেখানো হয়েছে। সর্বাধুনিক,সম্পুর্ন ডিজিটাল ও মনোরম পরিবেশে স্বপরিবারে দেখার মতো ছবি মাইক।

‘মাইক’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন নাদের চৌধুরী, ঝুনা চৌধুরী, জয়িতা মহলানবিশ, সংগীতা চৌধুরী, রহিম সুমন, ইকবাল হোসাইন, শিশুশিল্পী সানজিদ রহমান খান, আলী আবদুল্লাহ দাইয়ান ভূঁইয়া, খোন্দকার মেঘদূত জলিল, মীর্জা ত্বাবীব ওয়াসিত প্রমুখ।

About zahangir press

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap