শিরোনামঃ

আজ মঙ্গলবার / ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ২২শে নভেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ২৭শে রবিউস সানি ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় দুপুর ১২:৪৫

ভাঙ্গুড়ায় কাবিখা’র নামে চাঁদা বাজির অভিযোগ

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি : পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কারের কাজের বিনিময়ে খাদ্য (কাবিখা) কর্মস‚চির নামে গ্রাম বাসীর কাছ থেকে চাঁদাবাজি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় সাংসদের বিশেষ বরাদ্দের নামে কাবিখার ৬ টি প্রকল্পে ৫১.৩৬৭ মেট্রিক টন চাল দেওয়া হয়।

উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের হেলেঞ্চা বাধ হইতে রমনাথপুর অভিমুখে রাস্তা নির্মানে জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ১০.৩৭১ মেট্রিকটন চাল। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় মাটি কাটার মেশিন ভেকু দিয়ে চলছে রাস্তার কাজ । ভুক্তভোগী ও স্থানীদের সাথে কথা বলে জানা যায় রাস্তার পাশ থেকে যারা মাটি দিতে পারছেনা তাদের কাছ থেকে জোর পূবক চাঁদা আদায় করা হচ্ছে।

হেলেঞ্চা গ্রামের আলহাজ রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে নূর মুহাম্মাদের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা, মজিবর রহমানের ছেলের রওশন আলীর কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা, রমানাথপুর গ্রামের সোবাহানের ছেলে আঃ মাজেদের কাছ থেকে ৯ হাজার টাকা, মৃত এনÍাজের ছেলের সোলাইমানের কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা, হযরত মন্ডলের ছেলে মুসা মন্ডলের কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা, মৃত জয়নাল প্রামানিকের ছেলে হোসেনের কাছ থেকে ৫ হাজার ও আকবর প্রামানিকের ছেলে কমর উদ্দিনের কাছ থেকে ৬ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করেন।

ভেকুর মালিক মোঃ সোলাইমান ও মহির উদ্দিন এচাঁদা আদায় করেন। চাঁদার টাকা না দিতে পারায় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আছাদুর রহমান গ্রাম পুলিশ মোঃ আকবার আলীকে দিয়ে বিভিন্ন ভয় ভীতি দেখিয়ে চাঁদার টাকা আদায় করেন। ভুক্তভোগী গ্রামবাসী সাধারণ জনগণ এ চাঁদাবাজদের শাস্তির দাবি করেন।

খানমরিচ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আছাদুর রহমান ভ্যকু দিয়ে মাটি কাটার কথা স্বীকার করে বলেন, য়ারা চাঁদা নেয়ার অভিযোগ করেছে সাহস থাকলে আমার সামনে এসে বলুক।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আয়শা সিদ্দীকা বলেন, কাবিখা’র কাজে এক্সকেভেটর(ভ্যকু) দিয়ে মাটি কাটা ও চাঁদা নেওয়া অন্যায়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাছুদুর রহমান বলেন, কাবিখা’র কাজে এক্সকেভেটর (ভ্যকু) দিয়ে মাটি কাটা ও চাঁদা নেওয়া কোন নিয়ম নেই। এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap