শিরোনামঃ

আজ বৃহস্পতিবার / ৯ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ২৪শে নভেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ২৯শে রবিউস সানি ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় সন্ধ্যা ৭:৫৮

বড়াইগ্রামে প্রশাসনের হ¯Íÿেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ

বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের বড়াইগ্রামে প্রশাসনের হ¯Íÿেপে জুলেখা খাতুন (১৫) নামে এক স্কুলছাত্রী বাল্যবিয়ের হাত থেকে রÿ পেয়েছে। বুধবার দুপুরে উপজেলার নগর ইউনিয়নের দ্বারিখৈর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জুলেখা ওই গ্রামের জিয়ারুল ইসলামের মেয়ে এবং দেওশিন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী। পাশ্ববর্তী জোনাইল ইউনিয়নের চৌমহন গ্রামে তার বিয়ের দিনধার্য হয়েছিল।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রাশেদা পারভীন জানান, দুপুরে ১০৯ নম্বর থেকে ইউএনও আনোয়ার পারভেজের কাছে জুলেখার বাল্যবিয়ে সংক্রান্ত খবর আসে। খবর পেয়ে তিনি সহ ইউএনও ঘটনাস্থলে গিয়ে খবরের সত্যতা পান। তখন আতœীয়-স্বজনদের খাবার পরিবেশন চলছিল। পুলিশসহ ইউএনওর উপস্থিতিতে তারা খাবার ফেলে পালিয়ে যায়। পরে লোক মাধ্যম খবর পাঠিয়ে অভিভাবক এবং স্থাণীয় প্রধানদের উপস্থিতিতে মুচলেকা দিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এদিকে জুলেখার মা মর্জিনা বেগম জানান, তারা গরিব মানুষ, মেয়ে অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী। কষ্ট করে হলেও তাকে পড়া-লেখা করানো ইচ্ছে ছিল। কিন্তু স্থাণীয় এক বখাটে যুবক দীর্ঘদিন থেকে জুলেখার স্কুলে যাওয়া-আসার পথে উত্যাক্ত করে এবং তুলে নেওয়ার হুমকি দেয়। গরিব হওয়ায় প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছিলনা তারা। তাই মেয়ের বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
ইউএনও আনোয়ার পারভেজ বলেন, খবর পেয়ে মেয়ে পÿের মুচলেকা নিয়ে বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। বর পÿকে মোবাইল মাধ্যম নিশেধ করা হয়েছে। আর জুলেখার মায়ের বর্ণনা মোতাবেক অভিযুক্ত বখাটের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap