শিরোনামঃ

আজ বৃহস্পতিবার / ২৭শে শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / বর্ষাকাল / ১১ই আগস্ট ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ১২ই মহর্‌রম ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় রাত ৯:০৪

নিয়ম মেনে চলছে না একদন্তে ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলো

আটঘরিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি : পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার একদন্ত ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ কেন্দ্র ও উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলো। কিন্তু চিকিৎসক না থাকায় চিকিৎসা সেবা চরম ভাবে ব্যাহত হচ্ছে । সেখানে কয়েক জন রোগি বলেন, স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলো এভাবেই খুয়ে খুয়ে চলছে। চিকিৎসকরা চিকিৎসা কেন্দ্রে এসে খাতায় সই করে কিছুÿন পর চলে যান তারা।

জানা গেছে, এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ৫জন কর্মকর্তা কর্মচারীর পদ আছেন। তবে চিকিৎসক কর্মকর্তার পদ থাকলেও কার্যত কাউকে পদায়ন করা হয় না। তার জায়গায় দায়িত্ব পালন করেন উপ-সহকারি চিকিৎসা কর্মকর্তা। অন্যদের মধ্যে আছেন একজন পরিবার কল্যান পরির্দশক, একজন ফার্মাসিষ্ট, একজন আয়া, ও একজন নিরাপত্তা প্রহরী। এ কেন্দ্রগুলো আগে ২৪ঘন্টা প্রসূতিসেবা দেওয়া জন্য খোলা থাকত। এজন্য স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সঙ্গে চিকিৎসকদের আবাসন ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

সকালে এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, এর দরজা জানালা ঝুলছে। দু-তিনজন নারী রোগী চিকিৎসা নিতে দাঁড়িয়ে আছেন। একজনের কোলে শিশু। তারা বলেন, চিকিৎসা নিতে এলে চিকিৎসক তাদেরকে বসিয়ে রাখেন। কোনো ওষধ দিতে চান না।
ওষধ ঠিকমত পাওয়া যায় না। সে অনেক ÿন বসে থাকতে হয়।

একদন্ত ইউনয়ন স্বাস্থ্য পরিবার কল্যান কেন্দ্রে পরিবার কল্যান পরিদর্শিকা খাদিজা খাতুন জানান, এই স্বাস্থ্য কেন্দ্র ৫জনের পদ আছে। এর মধ্যে শামসুল হক ফার্মাসিষ্ট এ দায়িত্ব আছেন। কিন্তু সে বেশির ভাগ সময় ছুটিতে থাকেন। যার কারনে এখানে চিকিৎসা সেবা অনেকটা ব্যাহত হচ্ছে। এখানে যে পরিমানে ওষধ পাওয়া যায় তার তুলনায় রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। যার কারনে অনেক রোগী এখানে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

একদন্ত ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন সরদার জানান, এই ইউনিয়ন পরিবারকল্যান স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্র গুলোতে সময়মত চিকিৎসক আসে না। এখানে অনেক রোগি সেবা নিতে এসে লাইন ধরে ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। চিকিৎসকরা সঠিক ভাবে দায়িত্ব পালন না করায় তারা নিজ কর্মব্য¯Íতা নিয়ে থাকেন। রোগির প্রয়োজনীয় তুলনায় ওষধ কম। বিষয়টি সংশিøষ্ট কর্তৃপÿের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন ভূক্তভোগীরা।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap