শিরোনামঃ

আজ শুক্রবার / ১০ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ২৫শে নভেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ৩০শে রবিউস সানি ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় বিকাল ৩:৪৫

তাড়াশে সেচের টাকা বেশি নেওয়ায় কৃষকদের বিক্ষোভ

তাড়াশ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বোরো ধানের আবাদে সেচের টাকা বেশি নেওয়ায় বিক্ষোভ করেছেন ভুক্তভোগী কৃষকরা। ঘটনাটি ঘটেছে, বুধবার সকালে উপজেলার তালম ইউনিয়নের বড়ইচড়া গ্রামের ফসলি মাঠে। স্থানীয় কৃষকেরা অভিযোগ করেন, ওই গ্রামের ফসলি মাঠে একটি গভীর নলকূপে এলাকার শতাধিক কৃষক ২৫০ বিঘা জমিতে বিভিন্ন জাতের বোরো ধানের আবাদ করেছেন। আর ওই গভীর নলকূপটি পরিচালনা করেন, বড়ইচড়া গ্রামের সাইদুর ইসলাম নামের এক ব্যক্তি।
একই গ্রামের কৃষক আবদুল মাজেদ, আবদুস সামাদ, জয়নাল উদ্দিন, আসলাম আলী, ফজলু রহমান, আবদুল লতিফসহ আরো অনেকে জানান, বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলা ডেভেলপমেন্ট ফোরাম নামে একটি প্রতিষ্ঠান থেকে সাইদুর ইসলাম নামের ওই ব্যক্তি গভীর নলকূপটি লিজ নেন।
তিনি লীজ নেবার পর সব নিয়ম-কানুন ভেঙে কৃষকদের কাছ থেকে বিঘাপ্রতি ১৫শ থেকে ১৬শ টাকা আদায় করছেন।

কৃষক ফজলুর রহমান জানান, সেচ পরিচালনাকারী সাইদুর ইসলামের ধার্যকৃত টাকা না দিলে তিনি জমিতে সেচ দেওয়া বন্ধ করে দেবার হুমকি দিচ্ছেন। অথচ পার্শ্ববর্তী বগুড়া জেলার শেরপুর, নাটোর জেলার সিংড়া, গুরুদাসপুরসহ অন্যান্য উপজেলায় এ ধরনের গভীর নলকূপে চলতি বোরো আবাদে সেচের জন্য এক বিঘা জমিতে কৃষকদের কাছ থেকে নেওয়া হয় ১ হাজার থেকে ১২শ টাকা।

অপরদিকে বড়ইচড়া গ্রামের ওই ফসলি মাঠে সেচের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় গভীর নলকূপে আবাদ করা কৃষকেরা সেচ যন্ত্র পরিচালনাকরী পরিচালক সাইদুর ইসলামকে অতিরিক্ত টাকা দিতে বাধ্য হচ্ছেন। এদিকে নিরুপায় কৃষকেরা অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার প্রতিবাদে জমির আইলে দাঁড়িয়ে বিক্ষোভ করেছেন এবং ভুক্তভোগী কৃষকেরা সেচের জন্য অতিরিক্ত টাকা নেওয়া বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

অতিরিক টাকা নেওয়ার অভিযোগ প্রসঙ্গে সেচের পরিচালক সাইদুর ইসলাম বলেন, কৃষকদের অভিযোগ সত্য নয়।
এ প্রসঙ্গে তাড়াশ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সাইফুল ইসলাম জানান, গভীর নলকূপ সেচের জন্য বোরো আবাদে ১ হাজার থেকে ১২শ টাকাই যথেষ্ট। বিষয়টি তিনি জেনে দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap