শিরোনামঃ

আজ শুক্রবার / ২৪শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ৯ই ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ১৪ই জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় সন্ধ্যা ৬:৪৯

ঝড়ে সিরাজগঞ্জের ২০টি পরিবার বসতঘর হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে

 শুভ কুমার ঘোষ, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : বুধবারে সিরাজগঞ্জের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঝড় ও শীলা বৃস্টিতে সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের চর সাপরি গ্রামের ২০টি পরিবার বসতঘর হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে এবং অতি শীলা বৃষ্টির কারনে ৭৫ একর জমির খেসারী কালাই, মুসুর কালাই ও গমের আবাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় কৃষকরা জানান।

শনিবার সকালে সরেজমিনে চর সাপরি গ্রামে গেলে ক্ষতিগ্রস্থ আব্দুল হাকিমের পুত্র আব্দুর রউফ, নুরুল হকের ছেলে খায়রুল ইসলাম, হবিবুর রহমানের ছেলে ওমর আলী, জহুরালের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক, ইসহাক মন্ডলের ছেলে আব্দুল কাদের, রশিদ আলীর ছেলে হযরত আলী, আব্দুল মজিদ এর ছেলে সাদ্দাম হোসেন ও নুর আলম, জাফর আলীর ছেলে জবেদ আলী,এন্তাজ আলীর ছেলে হাকিম আলী,

মোহাম্মদ খলিফার ছেলে সারোয়ার হোসেন, শুকুর আলীর ছেলে নজরুল ইসলাম, জাহা বক্স এর ছেলে আকবর আলী, মুন্দি ফকিরের ছেলে নওশাদ, সামাদ শেখের ছেলে নুরনবী ও জাফর আলীর ছেলে আব্দুল্লাহ এ প্রতিবেদক কে বলেন গত ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ বুধবার বিকেলে প্রলয়ংকারী ঘূর্ণি ঝড় আমাদের বসত ঘড় উড়িয়ে নিয়ে যায়।

এখন পর্যন্ত আব্দুর রউফ, নুর আলম, খায়রুল,ওমর ও আব্দুল কাদেরের বসত ঘড়ের সন্ধান মেলেনি। এ ছাড়া মন্দির ফকিরের প্রায় ৫০ হাজার টাকা মুল্যের একটি ষাড়ঁ গরু ঝড়ের কবলে পরে মারা যায়। অপরদিকে শীলা বৃষ্টির কারনে ঐ এলাকার ৭৫ একর জমির খেসারী কালাই, মুসুর কালাই ও গমের আবাদের ব্যপক ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে তারা জানান।

ক্ষতি গ্রস্থ এলাকায় এখন পর্যন্ত কোন জনপ্রতিনিধি ঐ এলাকা পরিদর্শন করেন নাই বলে ভুক্তভোগিরা অভিযোগ করেন। তবে সদর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শনিবার সকালে ক্ষতি গ্রস্থ প্রত্যাক পরিবারের মাঝে ১ প্যাকেট বিস্কুট,১ প্যাকেট মুড়ি ও ৫ কেজি চালের একটি করে ব্যাগ বিতরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। ভুক্তভোগিরা জেলা প্রশাসকের কাছে বসত ঘর ও ফসলের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আর্থিক প্রনোদনা দাবী জানিয়েছেন।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap