শিরোনামঃ

আজ শনিবার / ১৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ৩রা ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ৮ই জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় রাত ৯:৫৯

চলতি অর্থ বছরে ৪০০ কোটি টাকার কাজ চলমান গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে পাবনায় এলজিইডি‘র সাফল্য

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা জেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) পলøী অবকাঠামো উন্নয়নে বিগত এক দশকে আশাতীত উন্নয়ন করেছে। সরকারের ভিশন বা¯Íবায়নে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন করার ফলে অনেকটা জীবনযাত্রার মান উন্নত হয়েছে পাবনাবাসীর। এলজিইডি‘র মাধ্যমে রা¯Íা-ঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট, উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স নির্মাণ, প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নির্মাণ, বাঁধ নির্মাণ, খাল খনন, মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা নিবাসসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ভবন নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।

সূত্র জানায়, যেখানে গ্রামে বসবাসকারী সাধারণ লোকজন কাঁচা রা¯Íা দিয়ে একস্থান হতে অন্য স্থানে যাতায়াত করতো, বর্তমানে সিংহভাগ পাকা সংযোগ সড়ক তৈরি হয়েছে। এতে দ্রæত ও কম সময়ের ব্যবধানে একস্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াত এবং কম খরচে কৃষিপণ্য পরিবহণ করছে গ্রামীণ লোকজন। নুতন নুতন রা¯Íা পাকা হওয়ায় বিভিন্ন স্থানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

এলজিইডি’র সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, এলজিইডি বিগত ১০ বছরে পাবনা জেলার ১হাজার ৫৮৩ কিলোমিটার গ্রামীণ সড়ক উন্নয়ন করেছে এবং ১হাজার ৫৮০ কিলোমিটার সড়ক রÿণাবেÿণ করেছে, বিভিন্ন উপজেলায় গ্রামীণ সড়ক নির্মাণাধীন রয়েছে ১হাজার ৮০০কিলোমিটার। আর ২৫৭ কিলোমিটার রা¯Íা রÿণাবেÿণাধীন রয়েছে। পানি সম্পদ উন্নয়নেও এলজিইডি‘র কার্যক্রমের আওতায় ৯টি সøুইসগেট-রেগুলেটর, ২৭ দশমিক ৪০ কিলোমিটার খাল খনন এবং ২টি বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরেই ৩৭৭ দশমিক ৫০ কিলোমিটার সড়ক রÿণাবেÿণ কাজ চলমান রয়েছে এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় প্রায় ৪০০কোটি টাকার কাজ চলমান রয়েছে।

ভাঙ্গুড়া উপজেলা প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ জানান, চলনবিল অধ্যুষিত চাটমোহর, ভাংগুড়া এবং ফরিদপুর উপজেলার জনগণের দাবীতে প্রায় ২০ কিলোমিটার দীর্ঘ ভাংগুড়া-নওগাঁ সড়কের ১ম পর্যায়ের মাটির কাজ এবং ব্রীজ-কালভার্ট নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্তির পথে একই সাথে ২য় পর্যায়ের পাকা করণের কাজের ঠিকাদার নিয়োগ প্রায় চুড়ান্ত। চলতি অর্থ বছরেই পাকা করণের কাজ সমাপ্ত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে এলজিইডি পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলী মোহা. রেজাউল করিম জানান, ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত এলজিইডি পাবনা জেলায় ৩৪৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন, ১টি প্রাইমারী ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, ৮টি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, ৩৮টি অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের বাসস্থান নির্মাণকাজ সমাপ্ত হয়েছে। এবং ১৪২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১টি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, একই সংগে ২টি উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ও ৩টি ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের কাজ নির্মনাধীন রয়েছে।

এছাড়াও ২হাজার ৮৫০ মিটার সেতু-কালভার্টের মধ্যে ১০০ মিটারের উর্দ্ধে সেতু নির্মান করা হয়েছে ৯টি। যার মধ্যে রয়েছে ভাংগুড়া – নওগাঁ সড়কে ৭টি, চাটমোহর ছাইকোলায় গোমানী নদীর উপর ১টি এবং ফরিদপুর উপজেলায় ডেমরা ঘাটে বড়াল নদীর উপর ১টি সেতু। তিনি আরো বলেন, পাবনার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন কাজের অগ্রগতি বেশ সন্তোষজনক। পাবনার উন্নয়নে স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যাক্তিগনের সার্বিক সহযোগিতায় এলজিইডি‘র সর্ব¯Íরের কর্মকর্তা-কর্মচারীর মননশীল ভুমিকায় এ সকল উন্নয়ন কাজ সুষ্ঠভাবে বা¯Íবায়ন করা সম্ভব হয়েছে।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap