শিরোনামঃ

আজ শুক্রবার / ২৪শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ / হেমন্তকাল / ৯ই ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ / ১৪ই জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি / এখন সময় রাত ১০:২১

কওমি জননী’ উপাধিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীন খবর ডেস্ক : ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দাওরায়ে হাদিসকে স্নাতকোত্তর সমমান মর্যাদা দিয়েছেন। তার এই স্বীকৃতিতে লাখো কওমী ওলামা ধন্য হয়েছে। এই অসামান্য অবদান ইতিহাসের সোনালী পাতায় চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।’ কওমি জননী’ উপাধিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী

রোববার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কওমি মাদরাসা সনদের স্বীকৃতি প্রদান উপলক্ষে আলেম-ওলামাগণ কর্তৃক আয়োজিত শুকরানা মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন হেফাজতে ইসলামের আমীর এবং কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড বেফাক ও আল-হাইয়াতুল উলয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়ার চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

আল্লামা শফীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুফতি নুরুল আমীন। বক্তব্য শেষে আল্লামা শফী শুকরিয়া স্মারক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন।

প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে শফী বলেন, ‘ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর কল্যাণে আপনার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে গেছেন। আপনার শাসনামলেও লাখ লাখ কওমি-কেরামের সনদের স্বীকৃতির দ্বারা ধন্য হয়েছে। আপনার কাছে আমাদের প্রত্যাশা, আল্লাহ, মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.)ও সাহাবা-কেরামদের বিরুদ্ধে অবমাননা বন্ধ, নবীজীর মহান বৈশিষ্ট্য খতমে নবুয়াতের আকীদা বিশ্বাস পরিপন্থী অপপ্রচার রোধ এবং দ্বীনের দাওয়াতের সঠিক কাজ ওলামা-কেরামদের মাধ্যমে ব্যবস্থা করুন।’

তিনি বলেন, ‘আমি দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে বলতে চাই, আমার কোনো রাজনৈতিক পরিচয় নেই। রাজনৈতিক কোনো দলের সঙ্গে আমার ও হেফাজতে ইসলামের নীতিগত সংশ্লিষ্টতা নেই। মনে রাখবেন, মুসলমানদের ঈমান-আকীদা ও ধর্মীয় মূল্যবোধকে রক্ষা করাই হেফাজতে ইসলামের মূল লক্ষ্য। হেফাজতে ইসলামের নীতি ও আদর্শের ওপর আমরা অটল-অবিচল আছি। আমার কর্মকৌশল সিদ্ধান্তকে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখার সুযোগ নেই। আমার বক্তব্যকে কেন্দ্র করে অপব্যাখ্যা, মিথ্যাচার করার অবকাশ নেই।

আহমদ শফী বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি ও উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে নানা ফিৎনা দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে মুসলমানদের মধ্যে হিংসা-বিদ্বেষ ও বিভেদ বাড়ছে। আমাকে ও হেফাজতে ইসলামকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও গণমাধ্যমে উদ্দেশ্যমূলক প্রোপাগান্ডা ও মিথ্যাচার চালাচ্ছে। কোনো ইলেকট্রনিক মিডিয়া, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ব্যক্তি বিশেষের কথায় বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আমি সবার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

মুসলিম উম্মাহর বর্তমান সঙ্কটকালে আলেম-ওলামাসহ সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের শিশাঢালা প্রচীরের মতো ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ঐক্যবদ্ধ থাকা সময়ের দাবি।’

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Share via
Copy link
Powered by Social Snap